‘Dirty Cultured Beings’

“একবার, আমাদের এপার্টমেন্ট থেকে বের করে দেওয়া হয়ছিলো পুজোর সময়। কারন আমাদের প্রার্থনার যে শব্দ হচ্ছিলো, তা বাড়িওয়ালার দাবী অনুযায়ী গোলমাল ছিল। আমরা কিন্তু আমাদের সাধারন প্রথা মতই সব করছিলাম। অথচ, আমরা কখনো মসজিদ বা অন্য কোনও ধর্মীয় চর্চার কারনে আসা কোন শব্দ নিয়ে কখনই কোন নালিশ করি নাই।যদিও আমাদের ধর্মের কারনে, “নোংরা কালচারের লোকজন”, এমন কথাও শুনতে হয়েছে, তা কখনো গায়ে মাখি নাই। কারো সাহায্য ছাড়াই আমাদের এসবের ভেতর দিয়ে যেতে হয়েছে। মর্যাদাহানির ভয়ে, কেউ এসে আমাদের পাশে দাঁড়ায় নাই। এমন না যে এতে আমাদের তেমন কোন সমস্যা হয়েছে। আমি হয়ত আরো বেশি তেতো হয়ে যেতাম, কিন্তু আমার পাশে আমার সবচেয়ে কাছের বন্ধু ছিল। ও মুসলিম, এবং ও সবসময়েই ছিল আমার সাথে। যখন আমি কিছু জটিলতার কারনে ইউনিভার্সিটি বদলেছিলাম, ও ছিল। ওর সাথে চলতে গিয়ে জীবন চলার পথে অনেক মানুষ পেয়েছি।”

“Once we were kicked out of our apartment while we were praying. The landowner called us out on “noise complaints” while we were just carrying out the rituals. Despite the fact that we ourselves have never complained about noises from Masjids or other forms of religious practices. There were remarks about being “dirty cultured beings” thrown towards me and my family. We dealt with it, without the help from anyone. No one would come forward or associate themselves with us. In case their reputation is hurt. We managed through it fine. And maybe I may have grown bitter if it wasn’t for my best friend. He’s Muslim, but he’s always been by my side. When I had to shift university to deal with something difficult, he was right there. He brought people into my life. He got me through it.”

0 comments on “‘Dirty Cultured Beings’Add yours →

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *